বিদেশে উচ্চশিক্ষা: জেনে নিন করণীয়! (পর্ব ২- IELTS)

বিদেশে পড়তে চাইলে শুধু সামর্থ্য থাকলেই চলবে না, করতে হবে কিছু পড়াশুনা, দিতে হবে কয়েক রকমের পরীক্ষা। বিশ্বজুড়ে আপনার ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা কেমন, তা জানার জন্য আপনাকে সাধারণত দুইটি পরীক্ষায় বসতে হবে। একটি হলো আইইএলটিএস এবং অন্যটি হলো টোয়েফল। যুক্তরাজ্য এবং অস্ট্রেলিয়ার মতন কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে পড়তে যেতে চাইলে ইংরেজিতে নিজের দক্ষতার প্রমাণ হিসেবে আইইএলটিএস (IELTS) স্কোরের তথ্য দিতে হয় আর যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা প্রভৃতি দেশে টোয়েফল(TOEFL) স্কোর প্রয়োজন হয়। কোন কোন দেশে দু’টি পদ্ধতিই গ্রহণযোগ্য। আর এসব স্কোর দু’বছর পর্যন্ত কার্যকর থাকে। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার আবেদন করার আগেই পরীক্ষা দিতে বসা উচিত। এছাড়াও উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য স্যাট (SAT), জিআরই (GRE), জিম্যাট (GMAT) পরীক্ষাগুলোতেও অংশ নেওয়া লাগতে পারে।

চলুন তাহলে এই পরীক্ষাগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে আসা যাক!

IELTS:

এই শব্দটির সাথে আমরা ছোট-বড় সবাই কমবেশি পরিচিত। কেননা রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় প্রায়ই ‘অমুক স্যারের কাছে IELTS কোচিং করুন’- এই ধরণের বিজ্ঞাপন দেখে থাকি (!) IELTS এর পূর্ণ রূপ হলো: International English Language Testing  System. প্রায় ২১ বছর আগে এই পদ্ধতি চালু হয়। বৃটিশ কাউন্সিল, আইডিপি, আইইএলটিএস অস্ট্রেলিয়া এবং কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় যৌথভাবে এর তদারক করে। বিশ্বের ১৩৫টির বেশি দেশে সাত হাজারেরও বেশি প্রতিষ্ঠান আইইএলটিএস-কে স্বীকৃতি দেয়। এখানে চারটি দক্ষতার (লেখা, বলা, শোনা, পড়া) পরীক্ষা নেয়া হয়।

ওয়েবসাইট: http://www.ielts.org

দারুণ সব লেখা পড়তে ও নানা বিষয় সম্পর্কে জানতে ঘুরে এসো আমাদের ব্লগের নতুন পেইজ থেকে!

IELTS যেভাবে হয়:

IELTS মূলত ৪টি মডিউলে সম্পন্ন হয়৷ প্রতিটি মডিউলের ব্যান্ড নম্বর সর্বোচ্চ ৯। মডিউল ৪টি হলো Listening, Reading, Writing, Speaking. ৬ কিংবা ৬ এর উপরের নাম্বারকে স্ট্যান্ডার্ড নম্বর হিসেবে ধরা হয়৷ পরীক্ষা ২ ধরণের হয়। একাডেমিক এবং জেনারেল। পড়াশুনার জন্য একাডেমিকটা বরাদ্দকৃত। জেনারেলের সাথে শুধুমাত্র পার্থক্য Reading আর Writing এ।

বাংলাদেশে British Council আর IDP এই পরীক্ষা নিয়ে থাকে। মাসে ৩ বার নেওয়া হয় এই পরীক্ষা। একজন পরীক্ষার্থী জীবনে যত খুশি ততবার এই পরীক্ষা দিতে পারবেন। একবার দেয়ার পরে পরেরবার যেকোনো সময়ে দিতে পারবেন। একসাথে আপনার হাতে একের অধিক রেজাল্ট থাকলেও কোন সমস্যা নাই।

পরীক্ষা দেয়ার দিন থেকে ১৩ তম দিনে রেজাল্ট পাব্লিশ করা হয়। রেজাল্ট ভাল না মনে হলে আপিল করার সুযোগ থাকে। কিছু ফি নেয়া হয় তখন। কিন্তু রেজাল্ট চেঞ্জ না হলেও ফি কিন্তু ফেরত দেয়া হবেনা।

Listening:

এই মডিউলে দ্বিপক্ষীয় কিছু কথা দেখানো হয়। সেখান থেকেই প্রশ্ন করা হয়৷ প্রতিটি প্রশ্নের জন্য ১ নম্বর করে পাবেন। কোন ভুল উত্তরের জন্য নম্বর কাটা যাবেনা। ৪ টি সেকশন থাকে। প্রতিটি সেকশনে ১০ টি করে প্রশ্ন থাকে। কম বেশিও হতে পারে। যদি দেখেন মোট প্রশ্ন ৪১/৪২/৩৯ টি তাহলেও ঘাবড়াবার কিছু নাই। তারা তাদের ব্যান্ড নাম্বার সেভাবেই সেট করে রাখেন।  

“ Now turn to the section 1” বলার মাধ্যমে পরীক্ষা শুরু হবে। এর আগে প্রশ্নপত্রে ভুলেও হাত দিবেন না। প্রতিটি সেকশনের মাঝে ৩৫-৪০ সেকেন্ডের বিরতি দেওয়া হয়। উত্তর পেন্সিল দিয়ে লিখলে ভাল, তাহলে ভুল হলে মুছে আবার ঠিক করা যাবে। যা শুনবেন সেটিই লিখবেন, কোনো প্রতিশব্দ লিখার চেষ্টা করবেন না। আর একদম শেষে answer transfer এর জন্য এক্সট্রা ১০ মিনিট পাবেন।

Reading:

তিনটি বিভাগে ৪০টি প্রশ্ন থাকবে। সময় ১ঘন্টা। নানা জার্নাল,বই,সংবাদপত্র,ম্যাগাজিন থেকে কিছু অংশ তুলে দেওয়া হবে। সেখান থেকেই বাক্যপূরণ, সংক্ষিপ্ত উত্তর, সঠিক উত্তর খুঁজে বের করা ইত্যাদি থাকবে।

Writing :

এখানে ৩টি সেকশন থাকে। আমরা এসএসসি ও এইচএসসিতে যেমন seen comprehension দেখে থাকি, এখানেও একই ধরণের প্রশ্নের প্যাটার্ন থাকে, তবে একটু কঠিন হয়।

সময় ১ ঘন্টা। প্রশ্নে সাধারণত True/False, Yes/No, Question and Answer ধরণের প্রশ্ন আসে। আগেই প্রশ্নের উপরে কী লিখা আছে তা ভালভাবে পড়ে নিবেন। কেননা প্রশ্নে যদি থাকে Yes/No, কিন্তু আপনি লিখলেন True/False, তাহলে কিন্তু হবে না। আর ১ ঘন্টার মধ্যেই সব প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবেন, কেননা এখানে এক্সট্রা ১০ মিনিট দেওয়া হবে না।

পরীক্ষার শুরুতে আন্সার শিট দিবে আর তার দুইদিকে থাকবে Listening আর Reading এর উত্তর লিখার জায়গা। খেয়াল করে লিখবেন। যদি Listening আর Reading উত্তর পাল্টাপাল্টি হয়ে যায়, তাহলে ৯-৯ পেলেও সেটা ১৮ হয়ে যাবে, ব্যান্ডে আসবে না।

এখানে দুইটি সেকশন থাকে। প্রথমটায় গ্রাফ, টেবিল, ডায়াগ্রাম থাকে। সেখান থেকে আপনাকে বিস্তারিত লিখতে বলা হবে, অর্থাৎ চিত্রের বিবরণ দিতে হবে। এটাকে Task 1 বলে। Task 2 টা কিছুটা ভারী টাইপের। তাই তার মূল্যও কিন্তু Task 1 থেকে বেশি। কয়েক রকমের প্রশ্ন আসে। যেমন: একটা statement দিয়ে দিলো। সেটার উপকারিতা/ অপকারিতা নিয়ে লিখতে বলতে পারে। আবার “আপনি কি এটার সাথে একমত নাকি একমত না?” এরকম বলে কেন একমত/ একমত না সেটার বিস্তারিত বলুন এই টাইপেরও প্রশ্ন হয়।

Speaking:

এটিও মূলত ৩টি সেকশনে হয়। প্রথম সেশনে আপনাকে কিছু প্রশ্ন করবে, সেগুলোর উত্তর দিতে হবে। ২য় সেকশনে আপনাকে একটি কাগজ ও পেন্সিল দিবে। কাগজে লিখা টপিকটি নিয়ে আপনাকে ২ মিনিট কথা বলতে হবে৷ এবং ৩য় সেশনে সেই একই টপিকের উপর বিস্তারিত আলোচনা করতে হবে। Speaking এ Fluency & Coherence, Grammer, Lexical resource, Pronunciation আর Intonation উপর ভিত্তি করে মার্ক দেয়া হয়।

IELTS এর ব্যাপারে সব তথ্য জেনে নাও এখান থেকে!

তোমার স্বপ্নের পথে পা বাড়ানোর ক্ষেত্রে তোমার ইংরেজির জ্ঞান কার্যকরী ভূমিকা রাখতে পারে!

তাই আর দেরি না করে, আজই ঘুরে এস ১০ মিনিট স্কুলের এই এক্সক্লুসিভ প্লে-লিস্টটি থেকে!

১০ মিনিট স্কুলের ইংরেজি ভিডিও সিরিজ

প্রস্তুতি:

এই কঠিন পরীক্ষার মাধ্যমে আপনি কতটা দক্ষ, সেটা যাচাই করা হয়। তবে কঠিন পরীক্ষার কথা শুনে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। সঠিকভাবে প্রস্তুতি নিতে পারলেই এই পরীক্ষায় ভাল ফলাফল করা সম্ভব। আপনি যদি ইংরেজিতে খুব বেশি দক্ষ হন, তবুও আপনাকে প্রস্তুতি নিয়েই পরীক্ষা দিতে বসা উচিত। একদিনের প্রস্তুতি দিয়েই ভাল নম্বর পাওয়া সম্ভব নয়, তাই দৈনিক কমপক্ষে ৩০-৬০ মিনিট IELTS প্রস্তুতির জন্য রাখা উচিত। অন্তত ৩ মাস ধরে এই পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়া উচিত। এবং IELTS এর মডেল প্রশ্ন সলভ করলেও প্রশ্ন সম্পর্কে একটি স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যায়৷

কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে IELTS পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের এমন মডেল পাওয়া যায়। ঢাকার নীলক্ষেত থেকে খুব কম টাকা দিয়েই আপনি এই বইটি সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। চাইলে নির্ভরযোগ্য কোনো প্রতিষ্ঠানে কোর্সও করে নিতে পারেন, তবে এর পাশাপাশি আপনাকে বাসায়ও পড়তে হবে। IELTS সম্পর্কিত সবধরণের তথ্য পাবেন ব্রিটিশ কাউন্সিল এবং আইডিপি বাংলাদেশ থেকে। ব্রিটিশ কাউন্সিলের লাইব্রেরির সদস্য হয়ে গেলে তাদের লাইব্রেরি থেকে আপনি IELTS সম্পর্কিত অসংখ্য বই পড়তে পারবেন।

নীলক্ষেত থেকে না জেনে কোনো বই কিনে অর্থ ও সময় নষ্ট না করাই ভালো। কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়, আইডিপি অস্ট্রেলিয়া এবং ব্রিটিশ কাউন্সিলের সরাসরি তত্ত্বাবধানেই IELTS পরীক্ষা হয়। তাদের কাছ থেকেই যখন সরাসরি তথ্য পাচ্ছেন, তখন অন্য কোথাও যাওয়াটা মোটেও বুদ্ধিমানের কাজ নয়। IELTS নিবন্ধনের সময় প্রস্তুতির জন্য দুটি ছোট বই দেওয়া হয়। এগুলো ভালোমতো পড়ুন ও সমাধান করুন। ব্যাকরণের অনেক খুঁটিনাটি জানতে পারবেন।

প্রথমেই মডেল প্রশ্নগুলো সমাধান করার চেষ্টা করুন। Spelling mistake এর জন্য নম্বর কাটা যায়। তাই নিজের বানান ঠিক রাখার চেষ্টা করবেন। ভুল উত্তর দিলে কোনো নম্বর কাটা যায় না। তাই সব প্রশ্নেরই উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবেন।

প্রশ্নের মধ্যে উল্লেখ করা থাকে যে কত শব্দের মধ্যে উত্তর দিতে হবে৷ যেই কয় শব্দের উল্লেখ থাকবে, সেই কয়টির মধ্যেই নিজের উত্তর লিখবেন। নাহলে নম্বর পাবেন না। Speaking এ ভাল করতে হলে পরিবার ও বন্ধুবান্ধবদের সাথে ইংরেজিতে কথা বলা শুরু করুন৷ এতে আপনার জড়তা কমবে। British Council, Wings, Gateway, Saifur’s, Mentors তে নির্দিষ্ট ফির বদলে মক টেস্ট দেওয়া যায়। নিজের দক্ষতা যাচাই করতে চাইলে এখানে পরীক্ষা দিয়ে দেখতে পারেন।

সঠিকভাবে কোন ইংরেজি শব্দ উচ্চারণ করতে পারা ইংরেজিতে ভাল করার জন্য অত্যন্ত জরুরি।

সহায়ক বই:

এবার আসা যাক বইয়ের ব্যাপারে। নীলক্ষেতে গেলে আমরা ফুটপাথের উপর থেকে শুরু করে একদম শেষ দোকান পর্যন্ত শুধুই IELTS প্রস্তুতির নানা ধরণের বই দেখতে পাই। তবে! ভুলেও সামনে যা পাবেন, সেটার দিকে হাত বাড়াবেন না! সব বইয়ে ভাল মানের কিছু নাও পেতে পারেন৷ এখানে আমি IELTS পরীক্ষার জন্য দরকারী এবং উপযোগী কিছু বইয়ের নাম দিয়ে দিচ্ছি।

Listening:

লিসেনিং-এর জন্য Cambridge-এর সিরিজ আছে। খুব ভালো। তবে প্রথম দুটো মানে 1 এবং 2 খুব সাধারণ মানের। ভালো কিছু শেখা যাবে 3, 4, 5, 6 -এই বইগুলো থেকে। এই বইগুলো CD-সহ কিনতে হবে। অথবা কারো কাছ থেকে পেনড্রাইভে সফট কপিও সংগ্রহ করে নিতে পারেন।

Reading:

অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের মতে রিডিং-এর জন্য Saifur’s-এর বইটা সহজ এবং বোধগম্য।

Writing:

রাইটিং-এর জন্য ভালো বই হচ্ছে Moniruzzaman’s IELTS Writing বইটি।

Speaking:

স্পীকিং-এর জন্য Khan’s Cue-Card 1 এবং 2 বেশ কার্যকরী।

এছাড়াও http://ieltsliz.com/  http://www.ielts-exam.net/ এই দুইটি লিংকে যেয়ে IELTS এর বেশকিছু মডেল কোয়েশ্চেন পাবেন। এগুলো ১০ দিন প্রাক্টিস করলেই চলবে।

স্কোর:

0-9 এই স্কেলে IELTS এর স্কোর দেওয়া হয়। চারটি অংশে আলাদাভাবে ব্যান্ড স্কোর দেওয়া হয়। এগুলোর গড় করে সম্পূর্ণ আরেকটি স্কোর দেওয়া হয়। এখানে কৃতকার্য বা অকৃতকার্য হওয়ার কোনো বিষয় নেই। আপনি আপনার প্রয়োজনীয় স্কোর করতে পারলেই পরীক্ষা দেওয়ার উদ্দেশ্য সফল হবে। ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে চাইলে সাধারণত সাড়ে ছয় থেকে সাড়ে সাত পেতে হয়। কোনো কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যান্ড স্কোরের ক্ষেত্রেও আলাদাভাবে ভালো করতে হয়।

সম্পূর্ণ স্কোর যত ভালোই হোক না কেন, একটি বিভাগে স্কোর কমে গেলে ভর্তির সুযোগ না-ও পেতে পারেন। পরীক্ষা দেওয়ার আগেই জেনে নিন ন্যূনতম কত স্কোর প্রয়োজন। আর আগেই বলেছি IELTS স্কোরের মেয়াদ থাকবে দুই (২) বছর।

IELTS Score Scale:

IELTS স্কোরসমূহের শুরু 1 থেকে 9 পর্যন্ত। স্কোরগুলো হচ্ছে –

Band 9: দক্ষ ব্যবহারকারী

Band 8: খুব ভালো ব্যবহারকারী তবে কিছু  জায়গায় সমস্যা রয়েছে

Band 7: ভালো ব্যবহারকারী, চলনসই

Band 6: পর্যাপ্ত ব্যবহারকারী

Band 5: পরিমিত ব্যবহারকারী

Band 4: সীমিত ব্যবহারকারী

Band 3: অতিরিক্তমাত্রায় সীমিত ব্যবহারকারী

Band 2: ব্যবহারকারী নয়

Band 1: যারা অপ্রাসঙ্গিক উত্তর দিয়েছে বা ‍‍             যারা communicate ব্যর্থ হয়েছে

Band 0: পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেনি / উত্তর দেয়নি।

পরীক্ষা ও ফলাফল প্রকাশ:

ব্রিটিশ কাউন্সিলের তত্ত্বাবধানে প্রতি মাসে তিনবার, অর্থাৎ বছরে ৩৬ বার IELTS পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। আগে, কোনো পরীক্ষার্থী আশানুরূপ না পেলে পরে পরীক্ষা দিতে হতো প্রথম পরীক্ষার অন্তত তিন মাস পর। এখন নিয়মিত ও অনিয়মিত পরীক্ষার্থীরা কাঙ্ক্ষিত স্কোর পাওয়ার আগ পর্যন্ত যতবার খুশি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন।

সাধারণত IELTS এর ফল প্রকাশিত হয় পরীক্ষার ১৩ দিন পর। ব্রিটিশ কাউন্সিল থেকে ফলাফল সংগ্রহ করা যাবে। এছাড়া ব্রিটিশ কাউন্সিল এর ওয়েবসাইট থেকে পরীক্ষার্থীর নম্বর, পাসপোর্ট নম্বর, জন্মতারিখ, পরীক্ষা প্রদানের তারিখ এন্ট্রি করে সহজেই জেনে নিতে পারবেন IELTS পরীক্ষার ফলাফল। যদি আপনার পরীক্ষার ফলের ওপর কোন সন্দেহ থাকে তবে ছয় সপ্তাহের মধ্যে  ‘Enquiry on Result’ -এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে নির্দিষ্ট ফি প্রদান করতে হবে, ফলাফলে ভুল ধরা পড়লে অবশ্যই আপনি ওই টাকা ফেরত পাবেন। ছয় থেকে ৮ সপ্তাহের মধ্যেই ব্রিটিশ কাউন্সিল আপনার পুনঃনম্বরকৃত ফলাফল ফিরে পাবে এবং তখন ব্রিটিশ কাউন্সিল আপনার সাথে যোগাযোগ করবে।

আইইএলটিএসের প্রস্তুতি অনলাইনে:

অনলাইনে IELTS পরীক্ষার প্রস্তুতি এবং ভালো স্কোর পেতে বেশকিছু সাহায্যকারী ওয়েবসাইট রয়েছে। Writing, Reading ও Speaking এর ওপর বিশদ ধারণা, লেসন, অডিও টিউটোরিয়ালসহ প্রয়োজনীয় প্রায় সব কিছুই যুক্ত করা হয়েছে এসব সাইটগুলোতে। IELTS প্রস্তুতিতে সহায়ক এমন কিছু ওয়েবসাইটের ঠিকানা-
www.britishcouncil.org/professionals-exams-ielts-intro.htm

www.ielts-exam.net

www.ielts.studyau.com

www.candidates.cambridgeesol.org/cs

www.cross-link.com/ielts-tutor.html

www.uefap.co.uk

রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত তথ্য:  

পরীক্ষার আগে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে ব্রিটিশ কাউন্সিলের ঢাকা, চট্টগ্রাম অথবা সিলেট শাখায়। তাদের অনুমোদিত ‘Registration Point’ Saifur’s, Gateway ও Mentors থেকেও রেজিস্ট্রেশন করা যাবে। পরীক্ষার তিন থেকে চার সপ্তাহ আগেই রেজিস্ট্রেশন করা ভালো।

পরীক্ষার্থীরা অনলাইনেও রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। ফি পরিশোধ সংক্রান্ত দিকনির্দেশনা অনলাইনেই পাওয়া যায়।
ব্রিটিশ কাউন্সিলের অফিশিয়াল সাইটের ’Register for IELTS’ থেকে ‘Register Online’ এ ক্লিক করে প্রয়োজনীয় তথ্য এন্ট্রির মাধ্যমে পরীক্ষার্থীরা সহজেই রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশন করতে খরচ পড়বে ১৫,৮০০ হাজার টাকা।

বি.দ্র: রেজিস্ট্রেশনের ক্ষেত্রে পরীক্ষার্থীর পাসপোর্ট থাকা আবশ্যক। রেজিস্ট্রেশনের সময় পাসপোর্টের ১ম ৪ পৃষ্ঠার ফটোকপি জমা দিতে হবে।

৩ কপি সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট আকারের ছবি ( ছয় মাসের অধিক পুরানো নয় এমন ছবি) এবং রেজিস্ট্রেশন ফরমে চশমা পরিহিত ছবি গ্রহণযোগ্য নয়। আপনার নিবন্ধন ফর্ম কাছের কোন ব্রিটিশ কাউন্সিল অফিস অথবা স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক ব্রাঞ্চের বুথে অথবা রেজিস্ট্রেশন পয়েন্টে জমা দিন। আপনি আপনার পরীক্ষা খরচ ব্যাংক ড্রাফট অথবা নগদ অর্থের মাধ্যমে ব্রিটিশ কাউন্সিলে অথবা রেজিস্ট্রেশন পয়েন্ট অথবা ব্রিটিশ কাউন্সিলের ডিপোজিট স্লিপ পূরন করে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের শাখাগুলোতে জমা দিতে পারেন।

বিস্তারিত তথ্য জানতে ব্রিটিশ কাউন্সিল এ যোগাযোগ করুন। British council IELTS Registration Points: ব্রিটিশ কাউন্সিল আইইএলটিএস রেজিস্ট্রেশন পয়েন্টস-

S@ifur’s: Suvastu Tower (3rd Floor), 69/1, Green Road, Panthapath, Dhaka.

Tel: +880 2 911 85 11/01824-999 888; website: www.saifurs.org

Gateway: 3/3 Block-A Lalmatia, Dhaka 1207, (Behind Sunrise Plaza)

Tel: +880 2 9125092, 8118250; Fax: 8121727 Ext-120 website: www.gateway-edu.net

Mentors: 166/1, Mirpur Road, Kalabagan, Dhaka-1205

Tel: +880 2 9131828, 9141795; website: www.mentors.com.bd

Standard Chartered Bank branches for IELTS registration (British Council): আইইএলটিএস রেজিস্ট্রেশনের জন্য স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের শাখাগুলোঃ (ব্রিটিশ কাউন্সিল)

Dhanmondi Branch: House –37, Road-2, Dhanmondi R/A, Dhaka 1205.

House –11, Road-5, Dhanmondi R/A, Dhaka 1205.

Gulshan Branch: Block No. NE (K), 3A/1, Holding No. 168, Gulshan Avenue, Dhaka.

SCB House, 67 Gulshan Avenue, Gulshan, Dhaka- 1212.

Uttara Branch: House-81 A, Road –7, Sector-4, Uttara, Dhaka-1230.

Sheraton Branch: Dhaka Sheraton Hotel (BSL Complex), 1 Minto Road, Dhaka 1000.

Mirpur Branch: Plot- 1, Road- 12, Block- C, Section 6, Mirpur, Dhaka 1221.

সূত্র:

http://m.somewhereinblog.net/mobile/blog/chiroterrosh/29867691

https://takeielts.britishcouncil.org/prepare-test/how-prepare-ielts-test

 


১০ মিনিট স্কুলের লাইভ এডমিশন কোচিং ক্লাসগুলো অনুসরণ করতে সরাসরি চলে যেতে পারো এই লিঙ্কে: www.10minuteschool.com/admissions/live/

১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল কর এই ঠিকানায়: write@10minuteschool.com

লেখাটি ভালো লেগে থাকলে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে ভুলবেন না!
What are you thinking?