এইচএসসি পদার্থবিজ্ঞান দ্বিতীয় পত্র: শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি!

2nd paper, ২য় পত্র, exam, HSC, physics, এইচ এস সি, পদার্থবিজ্ঞান, পরীক্ষা

চলছে এইচএসসি পরীক্ষা। বেশ কয়েকটি পরীক্ষা পার করে ফেলেছো তোমরা। পদার্থবিজ্ঞান প্রথম পত্রের পাটও শেষ, সামনে এসে পড়েছে দ্বিতীয় পত্র। যারা প্রথম পত্রে ভালো করেছো তারা যদিও একটু নিশ্চিন্তে রয়েছো, তবুও দুই পেপার মিলেই যে ফলাফল প্রকাশ হবে সে কথা নিশ্চয়ই ভুলে যাওনি?

আর যাদের প্রথম পত্রটা একটু খারাপ হলো, তাদের ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ থাকছে দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষাটাতেই। শেষ মুহূর্তে তাই পদার্থবিজ্ঞান দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষাটি নিয়ে তোমাদের জন্য থাকছে গুরুত্বপূর্ণ কিছু টিপস ও সাজেশন।

দারুণ সব লেখা পড়তে ও নানা বিষয় সম্পর্কে জানতে ঘুরে এসো আমাদের ব্লগের নতুন পেইজ থেকে!

মূল বইটার পুরোটা এক পলক দেখে নাও:

শেষ দিনগুলোতে যদি সময় হাতে থাকে, তবে মূল বইয়ের পুরোটা অন্তত একবার হলেও চোখ বুলিয়ে যাওয়া উচিত। এতে করে পুরো বই সম্পর্কে একদম শেষ মুহূর্তেও অত্যন্ত পরিস্কার একটা ধারণা থাকে, যা পরীক্ষাতে বেশ বড় রকমের একটা প্রভাব ফেলে।  

টেস্ট পেপার ও পুরনো বছরের প্রশ্ন:

টেস্ট পেপার ও পুরনো বছরের প্রশ্ন যে এবছর কমন পড়বে, এ ধরণের কিন্তু কোন কথা নেই। কিন্তু তবুও এগুলো থেকে প্রশ্ন প্র্যাকটিস করে যেতে হয়, কেননা, প্রশ্নের ধরণ না বুঝলে পরীক্ষায় ভালো নম্বর পাওয়া কখনোই সম্ভব নয়।

ঘুরে আসুন: আমার প্রথম পাবলিক পরীক্ষা আর ভোঁতা পেন্সিলের গল্প!

পুরনো বছরের প্রশ্ন আর টেস্ট পেপার প্র্যাকটিস করে গেলে পরীক্ষার হলে যেয়ে তুমি অন্যরকম একটা আত্মবিশ্বাস পাবে। টেস্ট পেপার সলভ করার সময় আগে ভালো ভালো কলেজের প্রশ্নগুলো দিয়েই শুরু করা উচিত। পরে সময় পেলে বাকি কলেজগুলোও দেখতে পারো।

ফিগার দিতে ভুলো না:

মনে করো, চলবিদ্যুতের একটা প্রশ্ন এসেছে, যেখানে কিনা তোমাকে একটা সার্কিট নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে। তুমি কিন্তু লেখার পাশাপাশি সেখানে তোমার সার্কিটটার একটা ফিগারও এঁকে দিয়ে আসতে পারো।

ফিজিক্সের অলিগলিতে ভ্রমণ!

ফিজিক্স এমন একটি সাবজেক্ট যা বুঝে বুঝে না পড়লে কোনভাবেই ভালো করা সম্ভব না।

আর ফিজিক্সকে ভালোভাবে বুঝতে দেখে এসো এই প্লে-লিস্টটি!
১০ মিনিট স্কুলের পদার্থবিজ্ঞান ভিডিও সিরিজ

এতে করে যিনি খাতা দেখবেন তিনি আরো সহজেই তোমার উত্তর বুঝতে পারবেন। তবে খেয়াল রেখো, ফিগার দিতে যেয়ে যেন আবার অপ্রাসঙ্গিক কোন কিছু এঁকে না ফেলো! এতে করে হিতে বিপরীত পারে!

টাইম ম্যানেজমেন্ট:

এই পয়েন্টটা পদার্থবিজ্ঞান পরীক্ষার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পরীক্ষার হলে প্রশ্নপত্র হাতে পেতেই কোন প্রশ্নের জন্য কত মিনিট সময় বরাদ্দ দেবে সেটা ঠিক করে নেয়া ভালো। এতে করে একেবারে শেষ মুহূর্তে যেয়ে সময়ের জন্য লেখা শেষ করতে না পারার আক্ষেপটা অন্তত থাকে না।

যদি কোন ফিগার দাও তবে তার জন্য যেন তোমার মূল লেখায় কোন প্রভাব না পড়ে সেদিকে খেয়াল রেখো।

ঘুরে আসুন: পদার্থবিজ্ঞানের মজার প্রশ্ন ও উত্তর

পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা:

হাতের লেখা ভালো নাকি খারাপ, এই বিষয়টির চাইতে গুরুত্বপূর্ণ তোমার খাতার পরিচ্ছন্নতা। অযথা কাটাকাটি কিংবা অসমান মার্জিন –  এসব বিষয় তোমার খাতার মান কমিয়ে দেবে বহুগুণে। তাই চেষ্টা রাখবে যাতে খাতায় কোন রকমের কাটাকাটি না হয়।

এবার ঘরে বসেই হবে মডেল টেস্ট! পরীক্ষা শেষ হবার সাথে সাথেই চলে আসবে রেজাল্ট, মেরিট পজিশন। সাথে উত্তরপত্রতো থাকছেই!

পেন্সিল শার্প রেখো:

যেহেতু পেন্সিলটা দিয়ে ফিগার আঁকতে হতে পারে, তাই বাসা থেকে আগের রাতেই শার্প করে রাখো সেটা। মার্জিন টানতেও তো পেন্সিলের দরকার, তাই না?

একেবারে শেষ মুহূর্তে যদি এই সাজেশনগুলোর উপর একটু চোখ বুলিয়ে যাও, তাহলেই আশা করি পদার্থবিজ্ঞান দ্বিতীয় পত্রে তোমার আর কোন সমস্যা হবে না। আর যাই করো না কেন, আগের রাতটায় একটু বেশি করে ঘুমিয়ে নিও, কেমন? সবার জন্য থাকলো শুভ কামনা! দোয়া রইলো, একদম জমিয়ে একটা পরীক্ষা দিয়ে দাও।


১০ মিনিট স্কুলের লাইভ এডমিশন কোচিং ক্লাসগুলো অনুসরণ করতে সরাসরি চলে যেতে পারো এই লিঙ্কে: www.10minuteschool.com/admissions/live/

১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল কর এই ঠিকানায়: [email protected]

লেখাটি ভালো লেগে থাকলে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে ভুলবেন না!
What are you thinking?