Uncategorized

গ্যাস সূত্রাবলি

হাইলাইট করা শব্দগুলোর উপর মাউসের কার্সর ধরতে হবে। মোবাইল ব্যবহারকারীরা শব্দগুলোর উপর স্পর্শ করো।

কোমল পানীয় (কার্বোনেটেড ড্রিংক যেমন: কোকাকোলা, পেপসি, স্প্রাইট, সেভেন আপ) আমাদের সবারই অনেক পছন্দ। কোমল পানীয়ের বোতলের মুখ খুললেই বুদবুদ আকারে \(CO_{2}\) গ্যাস বের হয়ে আসে। এই পানীয়ের স্বাদের মূল কারণই হল এর ভিতর দ্রবীভূত কার্বন ডাই অক্সাইড।এই যে বোতলের পানীয়তে \(CO_{2}\) দ্রবীভূত থাকে এর সাথে কিন্তু একটি গ্যাস সূত্র সম্পর্কিত। গ্যাস সূত্রগুলো মূলত গ্যাসের চাপ, আয়তন, তাপমাত্রা, মোল সংখ্যা এই চারটি বিষয় বা চলরাশির উপর ভিত্তি করে বিবৃত হয়েছে।

এবার গ্যাস সূত্রগুলোর ইতিহাস ও বিবৃতি জেনে ফেলি:


মোবাইল স্ক্রিনের ডানে ও বামে swipe করে ব্যবহার করো এই স্মার্টবুকটি। পুরো স্ক্রিন জুড়ে দেখার জন্য স্লাইডের নিচে পাবে আলাদা একটি বাটন।


সূত্রগুলো সম্পর্কে আরো পরিষ্কার ধারণা পেতে এই ভিডিওটি দেখে ফেলো


সত্য মিথ্যা যাচাই করো





সূত্রগুলো তো জানলে এখন তাহলে বলো তো কোমল পানীয়ের বোতলের ঘটনাটির সাথে কোন গ্যাস সূত্রটির সম্পর্ক রয়েছে?

ড্রপ ডাউনে ক্লিক করে জেনে নাও বিস্তারিত


উপরের ছবিটি লক্ষ্য কর। এ ধরনের সতর্কতামূলক লেখা তোমাদের বহুল ব্যবহৃত এবং পরিচিত একটি জিনিসের গায়ে  থাকে।সেটি হল বডি স্প্রে। শুধু বডি স্প্রেই না, যেকোনো ধরনের স্প্রে তে (যেমন: স্নো(snow) স্প্রে, পোকা-মাকড় মারার স্প্রে, এয়ার ফ্রেশনার) এ ধরনের কথা লেখা থাকে। যদি খেয়াল করে না থাকো তাহলে আজই নিজের বডি স্প্রের বোতলটি থেকে দেখে নিও।

এখন প্রশ্ন হল কেন স্প্রের বোতলে তাপ দেওয়া যাবে না? তাপ দিলে বা আগুনের কাছাকাছি রাখলে কেন বোতলটি বিস্ফোরিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে? এর কারণও হল একটি গ্যাস সূত্র। চলো আমরা জেনে আসি কোন গ্যাস সূত্রটি এ ঘটনার সাথে জড়িত।

ড্রপ ডাউনগুলোতে ক্লিক করে জেনে নাও বিস্তারিত

চার্লস আর গে লুসাকের সূত্রের মধ্যকার সম্পর্ক জানতে দেখে ফেলো এই ভিডিওটি


মোবাইল স্ক্রিনের ডানে ও বামে swipe করে ব্যবহার করো এই স্মার্টবুকটি। পুরো স্ক্রিন জুড়ে দেখার জন্য স্লাইডের উপরে পাবে আলাদা একটি বাটন।


ড্রপ ডাউনে ক্লিক করে জেনে নাও বিস্তারিত


প্রশ্নটি পড়ে উত্তরটি অনুমান করো





আশা করি, এই স্মার্ট বুকটি থেকে তোমরা গ্যাস সূত্রগুলো সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পেয়েছ। 10 minute school এর পক্ষ থেকে তোমাদের জন্য শুভকামনা রইলো।