Uncategorized

ঘাসফড়িং (শ্বসনতন্ত্র, প্রজননতন্ত্র, রূপান্তর)

Supported by Matador Stationary

শ্বসনতন্ত্র


ছোটখাট প্রাণী হলেও ঘাসফড়িং-এর শ্বসনতন্ত্র কিন্তু বেশ উন্নত ধরনের। ট্রাকিয়া নামক এক ধরনের শ্বাসনালি শাখা-প্রশাখা সৃষ্টির মাধ্যমে বিশেষ ধরনের এই শ্বসনতন্ত্র সৃষ্টি করে বলে একে ট্রাকিয়ালতন্ত্রও বলা হয়ে থাকে।

ঘাসফড়িং-এর শ্বসনতন্ত্র ছবিতে চিহ্নিত অঙ্গগুলো নিয়ে গঠিত:-


শ্বসন পদ্ধতি


শ্বাস-প্রশ্বাস জিনিসটা আসলে কী? সহজ কথায় অক্সিজেন আর কার্বন ডাইঅক্সাইডের আদান-প্রদান। অক্সিজেন দেহের ভেতর ঢুকবে আর কার্বন ডাইঅক্সাইড দেহ থেকে বের হবে। ঘাসফড়িং-এর ক্ষেত্রে এই গ্যাসীয় বিনিময় ঘটে ট্রাকিয়া ও ট্রাকিওলের মাধ্যমে। ২টি পর্যায়ে শ্বসন সম্পন্ন হয়:

ড্রপ ডাউনগুলোতে ক্লিক করে জেনে নাও বিস্তারিত


সঠিক উত্তরগুলোতে ক্লিক করো


প্রজননতন্ত্র 


ঘাসফড়িং একলিঙ্গ প্রাণী। অর্থাৎ একটি ঘাসফড়িং হয় পুরুষ হবে নাহয় স্ত্রী। স্ত্রী ও পুরুষ-উভয়ের বৈশিষ্ট্য একটি ঘাসফড়িং-এর মাঝে বিদ্যমান থাকবে না। কিন্তু বুঝব কী করে ঘাসফড়িংটা পুরুষ না স্ত্রী? খুব সহজেই। দেখবে স্ত্রী ঘাসফড়িং-এর উদরের শেষপ্রান্তে একটা ওভিপজিটর আছে যা পুরুষ ঘাসফড়িং-এর শরীরে অনুপস্থিত। তবে আরো ভাল করে স্ত্রী ও পুরুষ ঘাসফড়িং-এর পার্থক্য বুঝতে চাইলে জানতে হবে পুংজননতন্ত্র আর স্ত্রীজননতন্ত্র সম্পর্কে।


ঘাসফড়িং যৌন প্রক্রিয়ায় প্রজনন ঘটায়। নিচের ধারাবাহিক পর্যায়ে প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হয়।


সঠিক উত্তরে ক্লিক করো


রূপান্তর


রূপান্তর হল এমন একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে একটি ভ্রূণ পূর্ণাঙ্গ প্রাণীতে পরিণত হয়। রূপান্তর ২ ধরনের:

ড্রপ ডাউনগুলোতে ক্লিক করে জেনে নাও বিস্তারিত


রূপান্তর প্রক্রিয়া


ঘাসফড়িং-এর রূপান্তর অসম্পূর্ণ ধরনের। এর জীবনচক্রে ৩টি ধাপ লক্ষ্য করা যায়:


সত্য মিথ্যা নির্ণয় করো


প্রিয় শিক্ষার্থীরা, এরই সাথে এখানে শেষ করছি আমাদের এই স্মার্টবুকটি। তোমাদের জানার পরিধি বৃদ্ধির ক্ষেত্রে অবদান রাখতে পারলেই আমাদের এই স্বল্প প্রয়াস হবে সার্থক।


Fatal error: Call to undefined function wp_pagenavi() in /home/ab87442/public_html/hsc/wp-content/themes/sociallyviral/content-single.php on line 56