Uncategorized

সবাত শ্বসন (গ্লাইকোলাইসিস ও ক্রেবস চক্র)

শ্বসন কাকে বলে, এর সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা পাবার পর অরপার মাথায় একটা প্রশ্ন আসলো। পদার্থবিজ্ঞান পছন্দ করা অরপার জীববিজ্ঞান মোটেও পছন্দ না হলেও এই শ্বসন সম্পর্কে তার কৌতূহল বাড়ছে। তার মনে প্রশ্ন আসলো যে “ইঞ্জিনে তো জ্বালানী দহন হয়ে সরাসরি কার্বন ডাই অক্সাইড ও শক্তি পাওয়া যায়। জীবের শ্বসনেও কি তেমনি শ্বসনিক বস্তু যেমন গ্লুকোজ সরাসরি কার্বন ডাই অক্সাইড ও ATP তৈরি করে? আর সরাসরি না করলেই বা কিভাবে এই বিশাল গ্লুকোজ অনু শক্তি তে পরিনত হয়?”

তাহলে চল বন্ধুরা, আমরা অরপার এই প্রশ্নের উত্তর গুলো জেনে ফেলি খুব সহজেই।

হাইলাইট করা শব্দগুলোর উপর মাউসের কার্সর ধরতে হবে। মোবাইল ব্যবহারকারীরা শব্দগুলোর উপর স্পর্শ করো।

সাধারনত জীব অক্সিজেন যুক্ত পরিবেশে বাস করে। আর আমরা জানি মুক্ত অক্সিজেন এর সহায়তায় যে শ্বসন হয় তা হল সবাত শ্বসন। মূলত শ্বসন এর রাসায়নিক সমীকরণটি নিম্নরূপ

C₆H₁₂O₆+ 6[O₂]+ 6[H₂O]+ 38ADP+ 38Pi = 6CO₂+ 12H2O + 38ATP

কিন্তু এই প্রক্রিয়াটি আসলে অনেক অনেক রাসায়নিক বিক্রিয়ার সমষ্টি। সবাত শ্বসনকে প্রধানত চার ধাপে ভাগ করা হয়।

এসো এই চারটি ধাপ সংক্ষেপে দেখে নেই-

ড্রপ ডাউনগুলোতে ক্লিক করে জেনে নাও বিস্তারিত


এবার গ্লাইকোলাইসিস সম্পর্কে ভাল ভাবে জানার আগে এসো দেখে নেই এই পর্যন্ত শেখা বিষয়ে আমাদের ধারণা ঠিক আছে কিনা।



গ্লাইকোলাইসিস


Embden, Meyerhof, Parnas এই তিনজন বিজ্ঞানী প্রতিষ্ঠিত এই প্রক্রিয়া কে তাদের নাম অনুযায়ী EMP  pathway ও বলা হয়ে থাকে। আর যেহেতু এই ধাপে কোনো অক্সিজেন প্রয়োজন হয় না, তাই এই ধাপ অবাত শ্বসনেও পাওয়া যায়।


গ্লাইকোলাইসিস সম্পর্কে আরো ভালভাবে জানার আগে আমাদের কিছু জিনিস সম্পর্কে জেনে নেয়া দরকার।

ড্রপ ডাউনগুলোতে ক্লিক করে জেনে নাও বিস্তারিত


সত্য মিথ্যা যাচাই করো





এবার চল গ্লাইকোলাইসিস এর ধাপ গুলো দেখে নেই।


মোবাইল স্ক্রিনের ডানে ও বামে swipe করে ব্যবহার করো এই স্মার্টবুকটি। পুরো স্ক্রিন জুড়ে দেখার জন্য স্লাইডের নিচে পাবে আলাদা একটি বাটন।


এভাবে এক অণু গ্লুকোজ ভেঙ্গে মোট দুই অণু পাইরুভিক এসিড তৈরি হয়।

একটা জিনিস লক্ষ্য করেছো বন্ধুরা?

এখানে হেক্সোকাইনেজ, ফসফো ফ্রুক্টোকাইনেজ এবং পাইরুভিক এসিড কাইনেজ এনজাইম গুলোর বিক্রিয়া গুলো একমুখী। বাকি সব বিক্রিয়া উভমুখী।


শক্তি উৎপাদন


সুতরাং, নেট উৎপাদন-

২ টি ATP

২ টি NADPH⁺H⁺

এই ATP ও NADPH⁺ H⁺ থেকে যে শক্তি পাওয়া যায় তা মোট সুপ্তশক্তির ১৭%, তাপশক্তি হিসেবে বের হয়ে যায় ৩%, পাইরুভিক এসিড এর মধ্যে জমা থাকে ৮০%


সঠিক উত্তরে ক্লিক করো


অ্যাসিটাইল কো এ সৃষ্টি


সম্পূর্ণ বিক্রিয়াটি অনেকটা এরকম-

CH₃-CO-COOH + HS-CoA + NAD⁺ CH₃-CO-SCoA + CO₂ + NADH⁺H⁺

এছাড়া বিক্রিয়ায় TPP, লাইপোইক এসিড অংশ নেয় এবং এনজাইম হিসেবে কাজ করে ডিকার্বোক্সাইলেজ এবং ট্রান্সঅ্যাসিটাইলেজ এনজাইম।


পাইরুভিক এসিড থেকে অ্যাসিটাইল কো এ সৃষ্টি


(+) চিহ্নিত স্থানে ক্লিক করে জেনে নাও বিস্তারিত


প্রশ্নটি পড়ে উত্তরটি অনুমান করো


ক্রেবস চক্র


শ্বসন নিয়ে এ পর্যন্ত আলোচনায় আমরা দেখলাম যে গ্লাইকোলাইসিস থেকে দুই অণু পাইরুভিক এসিড অ্যাসিটাল কো এ সৃষ্টি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে দুই অণু অ্যাসিটাল কো এ তৈরি করে। এই অ্যাসিটাল কো এ এরপরে যে প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যায় টা হল ক্রেবস চক্র।

তাহলে চল বন্ধুরা, বিক্রিয়ার ঘোরপ্যাঁচে ঢোকার আগে ক্রেবস চক্র সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নেই-


ক্রেবস চক্রের কিছু তথ্য


১। এটি একটি চক্রাকার প্রক্রিয়া, যা শুরু হয় অক্সালো অ্যাসিটিক এসিড এর সাথে অ্যাসিটাইল কো এ যুক্ত হবার মাধ্যমে। আর শেষ হয় আবার অক্সালো অ্যাসিটিক এসিড তৈরি করার মাধ্যমে; যা আবার চক্রটি কে পুনরায় শুরু করে।

২। ক্রেবস চক্র নামটি এসেছে মুলত ১৯৩৭ সালে এই চক্রের আবিষ্কারক স্যার হ্যান্স ক্রেবস এর নামানুসারে।

৩। এছাড়া এই চক্রটিকে সাইট্রিক এসিড চক্র ; ট্রাইকার্বক্সিলিক এসিড চক্র বা টি সি এ চক্র ও বলা হয়।

৪। ক্রেবস চক্রের সব বিক্রিয়া হয় কোষের মাইটোকন্ড্রিয়ায়। সাইটোপ্লাজম থেকে অ্যাসিটাইল কো এ মাইটোকন্ড্রিয়ায় প্রবেশ করে ক্রেবস চক্রে অংশ নেয়।

এবার চল ক্রেবস চক্রের বিক্রিয়া গুলো দেখে নিই


মোবাইল স্ক্রিনের ডানে ও বামে swipe করে ব্যবহার করো এই স্মার্টবুকটি। পুরো স্ক্রিন জুড়ে দেখার জন্য স্লাইডের উপরে পাবে আলাদা একটি বাটন।



এবার এসো বন্ধুরা ক্রেবস চক্রের শক্তি উৎপাদন এর হিসাবটা জেনে নিই


শক্তি উৎপাদন ছাড়াও ক্রেবস চক্র নানা কাজে লাগে।

যেমন ধর পুরো টা প্রক্রিয়াতে বিভিন্ন ধাপে আমরা যে কতগুলো জৈব এসিড পেয়েছি, তারা সবাই উদ্ভিদের দেহ গঠনে দরকারি অ্যামিনো এসিড তৈরিতে কাজে লাগে। যেমনঃ

সালোকসংশ্লেষণের জন্য অপরিহার্য ক্লোরোফিল অণু তৈরিতে লাগে সাকসিনিক এসিড। এছাড়া শ্বসনে উৎপাদিত শক্তির বেশিরভাগ ই আসে ক্রেবস চক্র থেকেই।


আশা করি, এই স্মার্ট বুকটি থেকে তোমরা সবাত শ্বসন সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পেয়েছো। 10 Minute School এর পক্ষ থেকে তোমাদের জন্য শুভকামনা রইলো।