এই পৃথিবীতে এক স্থান আছে

Picture3

এই পৃথিবীতে এক স্থান আছে

লেখকঃ জীবনানন্দ দাশ

এই পৃথিবীতে এক স্থান আছে-সবচেয়ে সুন্দর করুণ;
সেখানে সবুজ ডাঙ্গা ভ’রে আছে মধুকূপী ঘাসে অবিরল;
সেখানে গাছের নাম: কাঁঠাল,অশ্বথ,বট,জারুল,হিজল;

সেখানে ভোরের মেঘে নাটার রঙের মতো জাগিয়েছে অরুণ;
সেখানে বারুণী থাকে গঙ্গাসাগরের বুকে-সেখানে বরুণ
কর্নফুলী ধলেশ্বরী পদ্মা জলাঙ্গীরে দেয় অবিরল জল;

সেইখানে শঙ্খচিল পানের বনের মতো হাওয়ায় চঞ্চল,
সেইখানে লক্ষ্মীপেঁচা ধানের গন্ধের মতো অস্ফুট, তরুণ;
সেখানে লেবুর শাখা নুয়ে থাকে অন্ধকারে ঘাসের উপর;
সুদর্শন উড়ে যায় ঘরে তার অন্ধকার সন্ধ্যার বাতাসে;
সেখানে হলুদ শাড়ি লেগে থাকে রুপসীর শরীরের ‘পর
শঙ্খমালা নাম তার: এ বিশাল পৃথিবীর কোনো নদী ঘাসে
তারে আর খুঁজে তুমি পাবে নাকো- বিশালাক্ষী দিয়েছিল বর,
তাই-সে-জন্মেছে নীল বাংলার ঘাস আর ধানের ভিতর।


মূলভাব

বাংলার প্রকৃতিতে মুগ্ধ নিবিষ্ট কবি জীবনানন্দ দাশ তাঁর জন্মভূমি বাংলাদেশকে পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর এক স্থান বলেছেন। এখানে পথে প্রান্তরে ছড়িয়ে আছে সবুজের আল্পনা। তাই কবি গোটা দেশকে সবুজ ডাঙা বলেছেন। এই সবুজ প্রান্তরে ছড়িয়ে আছে কাঁঠাল, বট, জারুল গাছ। এখানে লাল আভায় ভোরের সূর্য ওঠে, জলের দেবী জলাধারে অবিরল জলের যোগান দেয়। এখানে প্রাণী ও প্রকৃতির বন্ধন নিবিড়। সন্ধ্যার বাতাসে ঘরে ফিরে শ্যামল কোমল বাংলাই হয়ে ওঠে শান্তির ঠিকানা।

কন্টেন্ট ক্রেডিট:
হারুন স্যার
সরকারী বিজ্ঞান কলেজ

আরো পড়তে পারোঃ
১। লোক লোকান্তর
২। ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯
৩। আঠারো বছর বয়স
৪। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি