লোক লোকান্তর

Picture3

লোক লোকান্তর

লেখকঃ আল মাহমুদ

আমার চেতনা যেন একটি শাদা সত্যিকার পাখি,
বসে আছে সবুজ অরণ্যে এক চন্দনের ডালে;
মাথার ওপরে নিচে বনচারী বাতাসের তালে
দোলে বন্য পানলতা, সুগন্ধ পরাগে মাখামাখি
হয়ে আছে ঠোঁট তার। আর দুটি চোখের কোটরে
কাটা সুপারির রঙ
, পা সবুজ, নখ তীব্র লাল
যেন তার তন্ত্রে মন্ত্রে ভরে আছে চন্দনের ডাল
চোখ যে রাখতে নারি আত বন্য ঝোপের ওপরে।
তাকাতে পারি না আমি রূপে তার যেন এত ভয়

যখনি উজ্জ্বল হয় আমার এ চেতনার মণি,
মনে হয় কেটে যাবে, ছিঁড়ে যাবে সমস্ত বাঁধুনি
সংসার সমাজ ধর্ম তুচ্ছ হয়ে যাবে লোকালয়।

লোক থেকে লোকান্তরে আমি যেন স্তব্ধ হয়ে শুনি
আহত কবির গান। কবিতার আসন্ন বিজয়।


মূলভাব

‘লোক-লোকান্তর’ কবির আত্মপরিচিতিমূলক কবিতা। বাস্তব জগতের বিরুদ্ধে পরিবেশের চরে কবি আহত হয়েছেন। তাই তাঁর চেতনার শান্তিকামী পাখিটি লোকালয় থেকে দূরে প্রকৃতির নিবিড় জগতে উড়ে চলে যায়। সেখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য তাকে কবিতাসৃষ্টির প্রেরণায় উদ্বুদ্ধ করে। তাছাড়া তাঁর চোখে, চেতনায়, সর্বাঙ্গে বাংলার গ্রাম ও স্বাধীনতার ভাব মিশে আছে। বাস্তবতার চরে আহত পাখিটি সেখানে গান-কবিতার সুনিশ্চিত বিজয় লক্ষ্য করে, লোক থেকে লোকান্তরে গান গেয়ে যেতে চায়। ওই প্রকৃতির জগৎটি প্রকৃতপক্ষে কবির অনিষ্ট সাহিত্যের জগৎ।

কন্টেন্ট ক্রেডিট:
হারুন স্যার
সরকারী বিজ্ঞান কলেজ