এইচএসসি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি

ওয়েব ডিজাইন পরিচিতি এবং HTML

Supported by Matador Stationary

তুমি 10 Minute School ওয়েবসাইট ভিজিট করছ। সুন্দর করে সাজানো Content ও Transparent Red Colour এর হোমপেজ দেখে হঠাৎ তোমার ইচ্ছা হল, তুমি ওয়েব ডিজাইন করবে, কিন্তু কিভাবে? 

ডিজাইন বলতে কি বোঝায়?

ডিজাইন বলতে কি বোঝায়? সহজ ভাবে আমরা বুঝি কোন কিছু নকশা করা, রং করা, আঁকা, সুন্দরভাবে সমন্বয় করে-সাজিয়ে উপস্থাপন, এসব। ওয়েব ডিজাইন বিষয় টা ঠিক তাই।

তুমি একটা ওয়েবসাইট এর বিভিন্ন বিষয় ও তথ্য কিভাবে এবং কত সুন্দর ভাবে সাজিয়ে ঐ ওয়েবসাইটের ওয়েব পেজ এ উপস্থাপন করতে পার, সেটাই ওয়েব ডিজাইন। সাধারণত ডিজাইন মানেই রং-তুলি, পেন্সিল…ইত্যাদি দিয়ে কাজ; তাহলে তুমি এখন ভাবতে পারো,  এসব রং-তুলি, পেন্সিল ইত্যাদি দিয়ে কিভাবে ওয়েব ডিজাইন করবে?

আসলে ওয়েব ডিজাইনের আসল কাজ করতে এসব রং-তুলি বা পেন্সিলের দরকার হয় না। তাহলে কী দরকার হয়? 

দরকার হয় ইন্টারনেট সংযুক্ত ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস। এক্ষেত্রে কম্পিউটার হলে কাজটা সাচ্ছন্দে করা যায়; আজ-কাল মোবাইল দিয়েও ওয়েব ডিজাইন করা যায়। আরও দরকার হয় তোমার জ্ঞান, দক্ষতা, অভিজ্ঞতা।

ওয়েব ডিজাইন জানার আগে তোমাকে কিছু বিষয়ে ধারণা রাখতে হবে। যেমন, ওয়েব পেজ (Web Page), ওয়েবসাইট (WebSite), ওয়েব পোর্টাল (Web Portal), আইপি অ্যাড্রেস (IP Address) , ডোমেইন নেইম , ওয়েব ব্রাউজার ইত্যাদি।


ওয়েব পেজ (Web Page)

Web Page মূলত একটা ডকুমেন্ট ফাইল যা Hyper Text Markup Language(HTML) দ্বারা তৈরি করা হয়। HTML কী তা আমরা একটু পরেই বিস্তারিতভাবে জানব। ইন্টারনেট ব্যবহারকারিদের দেখা বা ব্যবহারের সুবিধার্থে বিভিন্ন দেশের ওয়েব সার্ভারএ রাখা HTML ফাইল কে Web Page বলে। এই HTML ফাইল বিভিন্ন ধরণের ও বিন্যাস বা Format এর তথ্য সম্বলিত থাকতে পারে। যেমন, ডেটা ফাইল হিসেবে pdf, docs, ppt ছবি ও গ্রাফিক্স ফাইল হিসেবে jpg, png, gif অডিও ফাইল হিসেবে mp3, amr; ভিডিও ফাইল হিসেবে mp4, avi, mkv, mpeg.


অবস্থান ভিত্তিতে  দুই ধরণের Web Page আছে


Web Page এর উপর ছোট একটি কুইজ দিয়ে ফেলো!


ওয়েবসাইট (Website)

ইন্টারনেটে এক বা একাধিক ওয়েবপেইজ সম্বলিত ফাইল এর অবস্থান বা ঠিকানা (Address) কে Website বলে।


গঠন বৈচিত্র্যের উপর ভিত্তি করে ওয়েবসাইট দুই ধরণের-

১. স্ট্যাটিক ওয়েবসাইট (Static Website): যে সকল Website এর ডেটার মান ওয়েব পেইজ লোডিং বা চালু করার সময় পরিবর্তন করা যায় না, তাকে Static Website বলে। Hyper Text Markup Language(HTML) দ্বারা এই ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়। ব্রডব্যান্ড কোম্পানিগুলোর ওয়েবসাইট।



২. ডাইনামিক ওয়েবসাইট (Dynamic Website): যে সকল Website এর ডেটার মান ওয়েব পেইজ লোডিং বা চালু করার সময় পরিবর্তন করা যায়, তাকে Dynamic Website বলে। এর সবচেয়ে ভাল উদাহরণ হল Facebook। এই Website তৈরির জন্য HTML এর সাথে স্ক্রিপ্টিং ভাষা বা প্রোগ্রামিং ভাষার প্রয়োজন হয়।

 



স্ট্যাটিক ওয়েবসাইট ও ডাইনামিক ওয়েবসাইট এর মধ্যে পার্থক্য

 


উক্তিগুলোর সত্যতা যাচাই করো! 


ওয়েব সাইট এর কাঠামো

সাধারণত একটি ওয়েবসাইটের ভেতরে অনেক ওয়েব পেইজ থাকে। ওয়েবসাইটের অন্তর্গত বিভিন্ন পেইজগুলো কীভাবে সাজানো থাকবে তাই হল ওয়েবসাইটের কাঠামো। এর মাধ্যমে কোন পেইজ এ কি কি ফাইল  বা কি কি ধরণের ফাইল থাকবে, কিভাবে থাকবে একটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করলে প্রথমে কোন পেইজ আসবে, ঐ পেইজ থেকে অন্যান্য পেইজে কীভাবে যাওয়া যাবে তা ওয়েবসাইটের কাঠামোতে ঠিক করা হয়। একটি ওয়েবসাইটের কাঠামো মূলত তিন ভাগে বিভক্ত থাকে।

শুধুমাত্র এই তিনটি বিষয় নিশ্চিত করলেই তুমি Basic ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবে।


ওয়েবসাইটের বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী উহার বিভিন্ন পেইজগুলোকে আবার  চার ভাবে সাজানো যায়-


ওয়েব ডিজাইনে আরও কিছু বিষয় তোমার জানা থাকা দরকার। যেমন-

ওয়েব পোর্টাল

ওয়েব পোর্টাল হচ্ছে এক ধরণের ওয়েবসাইট যেখানে অনেক গুলো উৎস থেকে সংগ্রহ করা বিভিন্ন তথ্য এবং গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক সাজানো থাকে। একটি ওয়েব পোর্টালে সাধারণত সরকারী সেবার তথ্য, স্থানীয়, আঞ্চলিক, স্টক রিপোর্ট এবং জাতীয় খবর, এবং ই-মেইল সেবা প্রদান করে থাকে। ওয়েব পোর্টালে প্রথম পাতায় সব গুলা তথ্যের জন্য একটি ইনডেক্স বা সূচি দেয়া থাকে, যেন ব্যবহারকারীরা সহজে তার দরকারি তথ্য খুজে পায়। উদাহরণ হিসেবে বাংলাদেশ সরকারের “বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন” ওয়েবসাইট টি দেখতে পারো।


IP Address বা Internet Protocol Address

প্রত্যেক মানুষের তাদের বাসার আলাদা আলাদা ঠিকানা থাকে। তাহলে কেউ তোমাকে চিঠি বা Gift পাঠাতে চাইলে সে তোমার ঠিকানা দেয় যাতে তুমি ই চিঠি বা Gift টি পাও। তার মানে ঠিকানা তোমার অবস্থান ও তোমাকে পরিচয় নিশ্চিত করছে।

তেমনি IP Address বা Internet Protocol Address ইন্টারনেটে তথ্য আদান-প্রদানের জন্য একরকম ঠিকানা। প্রত্যেক আলাদা আলাদা যোগাযোগ মাধ্যমের জন্য আলাদা IP Address থাকে। মানে তোমার কম্পিউটার অথবা মোবাইলের নিজস্ব  Address থাকে যা বিশ্বের কারও কম্পিউটার বা মোবাইলের সাথে মিলে না। এর মাধ্যমে ইন্টারনেটে তথ্য আদান প্রদান আরও সুরক্ষিত হয়। তবে কোন কোন ক্ষেত্রে IP Address পরিবর্তনশীল। যেমন ডিভাইস পরিবর্তন হলে কোন প্রতিস্থাপনের ওয়েবসাইট এর IP Address পরিবর্তন হওয়া ইত্যাদি। IP Address System জানতে অবশ্যই এই ভিডিও টি দেখবে।


ডোমেইন নেম

আইপি অ্যাড্রেস মনে রাখা থুব কষ্টসাধ্য ব্যাপার। এই কষ্টকর বিষয়টি সহজতর করার জন্য ইন্টারনেটে Domain Name System (DNS) নামে একটি পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়। Domain Name System হচ্ছে আইপি অ্যাড্রেস এর একটি আলফানিউমেরিক ঠিকানা। অর্থাৎ আইপি অ্যাড্রেসকে নামে Convert করার জন্য ডোমেইন নেম ব্যবহার করা হয়।

যেমন: ধরা যাক www.google.com এর আইপি অ্যাড্রেস হচ্ছে — 74.125.236.195।  www.google.com হল 74.125.236.195 এই IP Address এর  Domain Name. 

ডোমেইন নেম সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাইলে দেখে আসতে পারো এই Video টি।


ওয়েব ব্রাউজার

ওয়েব ব্রাউজার হলো এমন একটি সফটওয়্যার যার মাধ্যমে একজন ব্যবহারকারী যেকোনো ওয়েবপেইজ, ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবে অথবা লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্কে অবস্থিত কোনো ওয়েবসাইটের যেকোনো লেখা, ছবি এবং অন্যান্য তথ্যের অনুসন্ধান, ডাউনলোড কিংবা দেখতে পারেন। অর্থাৎ যে সফটওয়্যার ইন্টারনেটের ইনফরমেশন বা ওয়েব পেজ প্রদর্শনের কাজ করে তাকে ওয়েব ব্রাউজার বলে। কোনো ওয়েবসাইটে অবস্থিত লেখা এবং ছবি একই অথবা ভিন্ন ওয়েবসাইটের সাথে আন্তসংযুক্ত (হাইপারলিংক) থাকলে একটি ওয়েব ব্রাউজার একজন ব্যবহারকারীকে দ্রূত এবং সহজে এইসকল লিঙ্কের মাধ্যমে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে অবস্থিত অসংখ্য ওয়েবপেইজের সাথে তথ্য আদান-প্রদানে সাহায্য করে। যেমন: গুগল ক্রোম,মাইক্রোসফট ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার, মজিলা ফায়ারফক্স, অপেরা ইত্যাদি। এভাবে ওয়েবপেজের ভিতরকার লেখা, ছবি, ভিডিও ইত্যাদির মধ্যে চলাচল করাকে ব্রাউজিং বলে।


এখনকার মতো যথেষ্ট শেখা হয়েছে।  Now Exam Time.


উক্তিগুলোর সত্যতা যাচাই করো!