দুনিয়া কাঁপানো ৮টি মোবাইল অ্যাপের গল্প

পুরোটা পড়ার সময় নেই? ব্লগটি একবারে শুনে নাও!

 

আমাদের হাতের ছোট মুঠোফোনটি এখন আর ছোট নেই। সেটি আকারে নয় বরং কাজে। আগে আমরা যেই মুঠোফোনটি শুধু কথা বলার জন্য ব্যবহার করতাম, এখন আমরা তা দিয়ে যেন আমাদের পুরো জীবনকেই সাজাতে পারি। মুঠোফোন সেই আগের মতোই কথা বলার প্রয়োজনে ব্যবহার করা হয়, তবে তার সাথে যোগ হয়েছে বিভিন্ন অ্যাপ যা আমাদের জীবনকে আরও সহজ করে দিয়েছে।

আমরা সব কিছুই এখন পাই হাতের মুঠোয়। প্রয়োজন মতো অ্যাপ ডাউনলোড করে সবাই যার যার চাহিদা মিটিয়ে নিচ্ছে। আজ আমরা দেখবো যুগান্তকারী কয়েকটি অ্যাপ যা আমাদের জীবনকে সহজ থেকে সহজতর করে ফেলেছে।

১। Word Lens:

এই অ্যাপটি ভাষা রূপান্তরে সাহায্য করে শুধু মোবাইল ফোনের ক্যামেরা ব্যবহার করে। ধরো, তুমি এমন একটি দেশে গিয়েছো যার ভাষা সম্পর্কে তোমার কোন ধারণা নেই। এজন্য অনেক ভোগান্তি পোহাতে হতে পারে। কিন্তু এই অ্যাপটির সাহায্যে লেখাটির একটি ছবি দিলেই ব্যবহারকারীর প্রয়োজনমতো ভাষায় রুপান্তর করে দিবে। সুতরাং এখন ভিন্নদেশের ভাষা আমাদের জন্য কোন বাধাই সৃষ্টি করতে পারে না।

২। Uber:

এই সময়ের খুব জনপ্রিয় একটি অ্যাপ এই Uber। মোবাইলের একটি মাত্র টোকায় হাজির হয়ে যাবে গাড়ি। কোথায় আছো তা লিখে দিলেই কাজ সম্পূর্ণ। এরপর চাইলে তোমার ক্রেডিট কার্ডে ভাড়াটা চুকিয়ে দিতে পারো। এই অ্যাপটির প্রচলন রয়েছে ৫৮টি দেশে এবং ৩০০টি শহরে। সুতরাং এখন আর লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে যানবাহনের অপেক্ষা করতে হবে না। তাদের আরেকটি নতুন সার্ভিস UberEATS, যা ব্যবহারকারীর চাহিদা মতো তাদের দোরগোড়ায় খাবার সরবরাহ করে।

৩। Airbnb:

কখনো ভেবেছ, রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে হোটেল ভাড়া যাচাই না করে বাসায় বসেই পছন্দ মতো হোটেল ঠিক করে নেয়া গেলে কেমন হত? হ্যাঁ, এই অ্যাপটি দিচ্ছে সেই সুবিধা। ঘরে বসেই বেছে নিতে পারো তোমার পছন্দ এবং সাধ্যের মধ্যে তোমার থাকার স্থান। এই অ্যাপটির বিশেষত্ব হল, এখানে অনেক বিকল্প থাকে যাদের মধ্যে থেকে তুমি তোমার প্রয়োজন এবং সাধ্যের কথা মাথায় রেখে বেছে নিতে পারো তোমার পছন্দের হোটেল। হোটেল বাছাই করতে আগে যে কষ্ট পোহাতে হতো এখন তা অনেকাংশেই কমে গিয়েছে।

৪। WeChat:

তুমি যদি কখনো China নিয়ে পড়াশোনা করে থাকো, তবে অবশ্যই এই অ্যাপটির কথা শুনে থাকবে। এই অ্যাপটি শুধু China-তেই ব্যবহার করা যায় যা অন্য সব অ্যাপকে প্রতিস্থাপন করে ফেলেছে, এমনকি ফেসবুক এবং মেসেঞ্জারকেও। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মেসেজিং অ্যাপের অন্যতম এটি। ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৬০০ মিলিয়ন ছাড়িয়েছে। এটি শুধু খুদেবার্তা পাঠানোতেই সীমাবদ্ধ নয়। গেমস খেলা, টাকা পাঠানো, ডাক্তারের এপয়েন্টমেন্ট, সিনেমার টিকেট কেনা, খাবার অর্ডার থেকে শুরু করে সবই সম্ভব এই অ্যাপে।

৫। Shyp:

এই অ্যাপটি যেকোন পণ্য নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছে দিতে সাহায্য করে। পণ্য স্থানান্তরের পুরো দায়ভার নিয়ে ব্যবহারকারীকে সেই ঝামেলা থেকে করে মুক্ত। যেই পণ্যটি স্থানান্তর করতে চাও। এই অ্যাপের সাহায্যে তার একটি ছবি তুলে পাঠিয়ে দিলে তাদের কুরিয়ার ব্যবস্থা এসে পণ্যটি বুঝে নিয়ে তাদের স্থানীয় পণ্যাগারে নিয়ে সঠিকভাবে প্যাকেজিং করে গন্তব্যে পৌঁছে দেবে।

এটি শুধু পণ্য বুঝে নেয়ার দায়ভার নিলেও স্থানান্তরে অন্যদের উপর নির্ভর করে। যেমন: FedEx ,UPS ইত্যাদি, কিন্তু ভবিষ্যতে এই দিকটিও নিজেরা নিয়ন্ত্রণ করার লক্ষ্যে কাজ করছে এই অ্যাপটি। বর্তমানে New York City, Miami, Los Angeles, Chicago and San Francisco-তেই সীমাবদ্ধ তারা; তবে ভবিষ্যতে এই গণ্ডির বাইরেও কাজ করার পরিকল্পনা আছে তাদের।

৬। Duolingo:

এই অ্যাপটি খেলার মাধ্যমে নতুন একটি ভাষা শিখতে সাহায্য করে। ভাষা শেখার কয়েকটি ধাপকে একেকটি লেভেল হিসেবে ধরে নিয়ে খেলাটি সাজানো হয়েছে। এই অ্যাপ খেলার স্বাভাবিক নিয়ম অনুযায়ী এগুতে থাকে। যেমন, পয়েন্টস দেয়া, লেভেল আনলক করা ইত্যাদি। এই অ্যাপটির প্রধান উদ্দেশ্য হল ব্যবহারকারীকে তাদের দেয়া ১৩টি ভাষার মধ্য থেকে যেকোনো একটি ভাষায় দক্ষ করে তোলা। এটি খেলাচ্ছলে একটি নতুন ভাষা শেখাতে সাহায্য করে।

৭। Awair:

এটি Bitfinder নামের কোম্পানির উদ্যোগে তৈরি, যারা পরিবেশগত সুস্থতা নিয়ে কাজ করে। এই অ্যাপটি মূলত তোমার ঘরের অভ্যন্তরের বাতাসের অবস্থা সম্পর্কে জানান দেয়। এটি বাতাসের তাপমাত্রা, বাষ্প এমনকি সেই বাতাসে ধুলোর মাত্রা কতটুকু সে সম্পর্কেও তথ্য দিতে পারে।

৮। Thief Tracker:

নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে এই অ্যাপটি মূলত কী কাজের জন্য তৈরি। কারো মোবাইল ফোন যদি চুরি হয়ে যায় কিংবা বিনা অনুমতিতে ৩ বারের বেশি তা আনলক করতে চেষ্টা করে, তবে এই অ্যাপ নিজ থেকেই সামনের ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলে তার মালিকের ইমেইলে ছবিটি পাঁঠিয়ে দিবে এবং বলে দিবে সেটি এখন কোথায় আছে। এই অ্যাপের UI-তে একটি ডিলিট অপশন আছে যার সাহায্যে মোবাইলে থাকা ছবিগুলো ডিলিট করে ফেলতে পারো।

এই লেখাটির অডিওবুকটি পড়েছে তাহমিনা ইসলাম তামিমা


১০ মিনিট স্কুলের লাইভ এডমিশন কোচিং ক্লাসগুলো অনুসরণ করতে সরাসরি চলে যেতে পারো এই লিঙ্কে: www.10minuteschool.com/admissions/live/

১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল কর এই ঠিকানায়: [email protected]

লেখাটি ভালো লেগে থাকলে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে ভুলবেন না!
Author

Aysha Noman

Simplicity is the essence of her happiness. Loves to read books and watch movies. Enjoy being a business student during the day and a writer by night. She is currently studying at the Department of Marketing, University Of Dhaka.
Aysha Noman
এই লেখকের অন্যান্য লেখাগুলো পড়তে এখানে ক্লিক করুন
What are you thinking?