গণিত নিয়ে ভাবনা? আর না!

পুরোটা পড়ার সময় নেই ? ব্লগটি একবার শুনে নাও !

আমাদের দেশের স্কুল-কলেজগুলোতে এমন অনেক শিক্ষার্থী আছে, গণিতের নাম শুনলেই যাদের ভয়ে অবস্থা খারাপ হয়ে যায়। শুধু স্কুল-কলেজ নয়, বিশ্ববিদ্যালয়ে এসেও আমি এমন অনেককেই দেখেছি যারা আজও গণিতকে ভয় পায় ঠিক আগের মতোই।

গণিত নিয়ে সবার ভয় কিন্তু একরকম হয় না। কেউ হয়তো গাণিতিক সমস্যা সমাধান করাকেই ভয় পায়, কেউ আবার ভয় পায় সমস্যার মাঝখানে এসে আটকে যাওয়াকে, কেউ আবার ভয় পায় শুধু গণিত পরীক্ষাকে। তবে ভয়টা যে কারণেই হোক না কেন, তুমি কিন্তু চাইলেই জয় করে ফেলতে পারো তোমার গণিতের ভয়কে। চলো জেনে নেই, গণিতের ভয়কে জয় করার দারুণ কিছু উপায়।

দারুণ সব লেখা পড়তে ও নানা বিষয় সম্পর্কে জানতে ঘুরে এসো আমাদের ব্লগের নতুন পেইজ থেকে!

ইতিবাচক হও:

যেকোনো কিছু শেখার আগে বা জয় করার আগে প্রথম শর্ত হচ্ছে সে বিষয়ে ইতিবাচক মনোভাব তৈরি করা। তুমি যদি গণিত শিখতে চাও, গণিতের ভয়কে জয় করে পারদর্শী হতে চাও তবে প্রথমেই তোমাকে গণিত বিষয়টাকে অন্য সব বিষয়ের মতো স্বাভাবিকভাবে নিতে শিখতে হবে। তারপর চেষ্টা করে গেলে একসময় দেখবে সত্যি সত্যি তুমি জয় করে ফেলেছো গণিতের ভয়কে।

মুখস্ত না করে বুঝে করো:

কিছু সূত্র মুখস্ত করা ছাড়া গণিতের বাকি সবকিছুই তোমাকে বুঝে করতে হবে। যদি না বুঝে মুখস্ত করো তাহলে দেখবে তোমার কাছে সমস্যাগুলো খুব জটিল মনে হবে এবং পরীক্ষার প্রশ্নে একটু ঘুরিয়ে দিলেই আর সমাধান বের করতে পারবেনা। তাই যতোটা সম্ভব বুঝে বুঝে করার চেষ্টা করবে, তাহলেই দেখবে গণিত বিষয়টা কেমন সহজ হয়ে গেছে।

মজায় মজায় অংক শিখ!

অঙ্ক এমন একটা জিনিস যা আমাদের সারা জীবনের প্রতিটি পদক্ষেপেই কাজে লাগে।

তাই আর দেরি না করে, আজই ঘুরে এস ১০ মিনিট স্কুলের এই এক্সক্লুসিভ প্লে-লিস্টটি থেকে!

ম্যাথ হ্যাকস!

টাইপ ধরে ধরে সমাধান করো:

গণিতের প্রতি ভয় সৃষ্টি হওয়ার পিছনে একটি কারণ হচ্ছে সমস্যা সমাধান করার সময় অনেকেই টাইপ ধরে না করে একেক সময় একেক ধরনের সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করে। যার ফলে সমস্যাগুলো মনে হয় অনেক কঠিন এবং এক্ষেত্রে নিয়মগুলো মনে রাখাও অনেক কঠিন হয়ে যায়।

সমস্যা যতবার সমাধান করবে সেটির উপর তোমার দক্ষতা ততোই বৃদ্ধি পাবে

তাই সমস্যা সমাধান করার সময় একই ধরনের সমস্যাগুলো একসাথে করা উচিত। একটি টাইপ শেষ হলে তারপর পরবর্তী টাইপে যাওয়া উচিত। তাহলে দেখবে নিয়মগুলো মনে রাখতেও সমস্যা হবেনা আর সেই টাইপের কোনো সমস্যাতেই তুমি আর আটকে যাবে না।

বারবার অনুশীলন করো:

গণিত এমন একটা বিষয় যার উপর দক্ষতা জিনিসটা নির্ভর করে পুরোপুরি অনুশীলনের উপর। তুমি একটি সমস্যা যতবার সমাধান করবে সেটির উপর তোমার দক্ষতা ততোই বৃদ্ধি পাবে। এক সময় এসে দেখবে এই টাইপের সমস্যা যত জটিল করেই আসুক না কেন তুমি ঠিকই সমাধান বের করে ফেলতে পারছো।

ঘুরে আসুন: ১০টি কৌশল যা পড়া মনে রাখতে সাহায্য করবে!

নিজের দক্ষতাকে ঝালিয়ে নাও:

একটি অধ্যায় শেষ করে অন্য অধ্যায়ে যাওয়ার আগে নিজেকে ঝালাই করে নাও। যা শিখেছো, যতোটুকু শিখেছো তাতে যেন কোনো ত্রুটি না থাকে। পরীক্ষা দাও, তারপর উত্তর মিলিয়ে নাও। এভাবেই নিজেকে আরো দক্ষ করে তোলো সে অধ্যায়ে।

ব্লগটি পড়তে পড়তেই চল খেলি কিছু মজার ব্রেইন টীজার গেইম!

ভুলগুলো শুধরে নাও:

পরীক্ষা দিয়ে বা কোন সমস্যার সমাধান করতে গিয়ে কোন জায়গায় ভুল করলে তা সাথে সাথেই শুধরে নাও। ভুলগুলো ঠিক করে সঠিক জিনিসটা জেনে শিখে নাও, যাতে পরবর্তীতে এই ধরণের কোন সমস্যা সমাধানে আর ভুল না হয়। এর মাধ্যমে ধীরে ধীরে তোমার গণিতের দক্ষতা আরো বাড়বে। একসময় দেখবে ভুল ছাড়াই তুমি সব প্রশ্নের সমাধান করতে পারছো।

তাই গণিতকে আর ভয় না পেয়ে আজ থেকেই শুরু করে দাও গণিতের ভয়কে জয় করার মিশন। নিয়মিত অনুশীলন করো, টিপসগুলো মেনে চলো আর বুঝে বুঝে সমস্যাগুলোর সমাধান করো। দেখবে, শীঘ্রই তুমিও জয় করে ফেলেছো গণিতের ভয়কে।


১০ মিনিট স্কুলের লাইভ এডমিশন কোচিং ক্লাসগুলো অনুসরণ করতে সরাসরি চলে যেতে পারো এই লিঙ্কে: www.10minuteschool.com/admissions/live/

১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল কর এই ঠিকানায়: [email protected]

লেখাটি ভালো লেগে থাকলে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে ভুলবেন না!
What are you thinking?