Uncategorized

গাণিতিক সমস্যা (ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী)

এখন তোমাদের ব্যাংক সমন্বয় বিবরণীর আরেকটি পদ্ধতি সম্পর্কে ধারণা দিবো, যে পদ্ধতিটির নাম হল একক জের বা প্রচলিত পদ্ধতি।
এই পদ্ধতিটির নাম শুনে প্রথমেই কী মনে হচ্ছে? “একক জের”, এতে মনে হয় কেবল একটি জের থাকবে, তাই না? আসলেও ঠিক তাই, এই পদ্ধতিতে আমরা একটি জের নিয়ে ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী তৈরী করবো অর্থাৎ এই পদ্ধতিতে আমরা একটি জের থেকে অন্য আরেকটি জেরে পৌছাবো।

আবার একটু উভয় জের সংশোধনী পদ্ধতিতে ফিরে যাই, তোমাদের বোঝার সুবিধার্থে আমি তোমাদের উভয় জের পদ্ধতি সম্পর্কে প্রথমে ধারণা দিয়েছিলাম এতে তোমাদের একক জের পদ্ধতি বুঝতে যেন সহজ হয়। একক জের পদ্ধতি উভয় জের সংশোধনী পদ্ধতি থেকে একটু আলাদা। তবে তোমরা যেন সহজেই একক জের পদ্ধতিতে গাণিতিক সমস্যা সমাধান করতে পারো তার কিছু কৌশল ও গাণিতিক সমস্যা দেখে নেও।


ব্যাংক সমন্বয় বিবরণীর খুঁটিনাটি


→ ব্যাংকে যে কোন প্রকার জমা বা অর্থ বৃদ্ধিতে নগদান বইতে ডেবিট হয় এবং ব্যাংক হতে উত্তোলন ও যেকোন প্রকার খরচ প্রদান করলে নগদান বইতে ক্রেডিট হয়।

→ নগদান বইয়ের ডেবিট উদ্বৃত্ত দ্বারা ব্যাংক জমাকে বুঝায় ও ক্রেডিট উদ্বৃত্ত দ্বারা ব্যাংক জমাতিরিক্ত (দায়) বুঝায়।

→ ব্যাংকে যে কোন প্রকার জমা বা অর্থ বৃদ্ধিতে ব্যাংক বিবরণীতে ক্রেডিট হয় এবং ব্যাংক হতে উত্তোলন ও খরচ প্রদান করলে ব্যাংক বিবরণীতে ডেবিট হয়।

→ ব্যাংক বিবরণীর ক্রেডিট উদ্বৃত্ত দ্বারা ব্যাংকে জমা থাকা সর্বশেষ পরিমাণকে বুঝায় ও ডেবিট উদ্বৃত্ত দ্বারা ব্যাংক জমাতিরিক্ত।

ড্রপ ডাউনগুলোতে ক্লিক করে জেনে নাও বিস্তারিত


সত্য মিথ্যা যাচাই করো


আশা করি, এখন থেকে ব্যাংক সমন্বয় বিবরণীর অংকগুলো বুঝতে তোমাদের তেমন সমস্যা হবে না। 10 Minute School এর পক্ষ থেকে তোমাদের জন্য শুভকামনা রইলো।