তড়িৎ ক্ষেত্রের প্রাবল্য

হাইলাইট করা শব্দগুলোর উপর মাউসের কার্সর ধরতে হবে। মোবাইল ব্যবহারকারীরা শব্দগুলোর উপর স্পর্শ করো।

একটি চার্জিত বস্তু তার চারদিকে যতদুর পর্যন্ত তার প্রভাব বিস্তার করে বা অন্য একটি চার্জের উপর আকর্ষন বা বিকর্ষন বল প্রয়োগ করে সেই অঞ্চলকে চার্জিত বস্তুর তড়িৎক্ষেত্র বলে।

কোন বিন্দুতে তড়িৎক্ষেত্র আছে কিনা তা দেখার জন্য পরীক্ষামূলকভাবে যে আধান বা চার্জ স্থাপন করা হয় তাকে পরখ চার্জ বলে। একটি তড়িৎক্ষেত্রের সকল বিন্দুতে পরখ চার্জ সমান বল অনুভব করবে না। পরখ চার্জকে চার্জিত বস্তুটির কাছে আনলে সবল বল অনুভব করবে আর দুরে যেতে থাকলে বলের সবলতা কমতে থাকে। তাই বলা যায়, তড়িৎ ক্ষেত্রের কোন বিন্দুতে একটি একক ধনাত্মক আধান স্থাপন করলে সেটি যে বল অনুভব করে তাই তড়িৎ প্রাবল্য। একে E দ্বারা প্রকাশকরা হয়।

যদি q পরিমান ধনাত্মক চার্জ তড়িৎক্ষেত্রের কোনো বিন্দুতে স্থাপন করলে F বল অনুভব করে, তাহলে সেই বিন্দুতে তড়িৎ প্রাবল্যের মান হবে, \(E=\frac{F}{q}\)

বন্ধুরা, যেহেতু তড়িৎপ্রাবল্য একক চার্জের উপর ক্রিয়ারত বল। তাই বলা যায় এটি একটি ভেক্টর রাশি। কারন বল একটি ভেক্টর রাশি। অর্থাৎ তড়িৎ প্রাবল্যের দিক থাকবে। প্রাবল্যের দিক হবে পরখ চার্জ q যে দিকে বল অনুভব করে সে দিকে।

আধুনিক বলবিজ্ঞানের ভাষায় তড়িৎক্ষেত্র বলতে আসলে তড়িৎ প্রাবল্যকেই বুঝানো হয়।

বিন্দু চার্জের জন্য তড়িৎ প্রাবল্য


মনে কর একটি বিন্দু চার্জ +q এর জন্য একটি তড়িৎক্ষেত্র সৃষ্টি হয়েছে। +q বিন্দু চার্জ থেকে r দুরত্বে P বিন্দুতে একটি পরখ চার্জ \(+q_{0}\)স্থাপন করা হল। কুলম্বের সূত্র অনুসারে \(q_{0}\) এর উপর +q দ্বারা প্রযুক্ত বল,
\(F=\frac{1}{4π\epsilon_{0}}. \frac{qq_{0}}{r^{2}q_{0}}\)
তাহলে সংজ্ঞানুসারে p বিন্দুতে তড়িৎ প্রাবল্য,
\(E=\frac{F}{q_{0}}=\frac{1}{4π\epsilon_{0}}. \frac{qq_{0}}{r^{2}q_{0}}\)
\(\Rightarrow E= \frac{1}{4π \epsilon_{0}}.\frac{q}{r^{2}}\)

তড়িৎ বলের ভেক্টর যোগ


মোবাইল স্ক্রিনের ডানে ও বামে swipe করে ব্যবহার করো এই স্মার্টবুকটি। পুরো স্ক্রিন জুড়ে দেখার জন্য স্লাইডের নিচে পাবে আলাদা একটি বাটন।

তলমাত্রিক ঘনত্ব


তোমরা জানো কোন পরিবাহককে আহিত করলে আধান এর পৃষ্ঠে অবস্থান করে। কিন্তু পরিবাহকের সর্বত্র আধান সমান থাকবে, তার কি কোন নিশ্চয়তা আছে? আসলে এটা পুরোটাই নির্ভর করে পরিবাহকের আকার ও অন্যান্য পরিবাহক বা অন্তরকের উপস্থিতির উপর। আধান ঘনত্বের সাহায্যে পরিবাহকের পৃষ্ঠের বিভিন্ন অংশের আধান সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।
আধান ঘনত্বকে অনেক সময় আধানের তলমাত্রিক বা পৃষ্ঠমাত্রিক ঘনত্ব (Surface charge density) বলে। তলমাত্রিক ঘনত্বের একক \(Cm^{-2}\)।

তড়িৎ প্রাবল্য ও চার্জের তলমাত্রিক ঘনত্বের মধ্যে সম্পর্ক


বন্ধুরা, এবার চলো কয়েকটি গাণিতিক সমস্যার সমাধান দেখা যাক:


মোবাইল স্ক্রিনের ডানে ও বামে swipe করে ব্যবহার করো এই স্মার্টবুকটি। পুরো স্ক্রিন জুড়ে দেখার জন্য স্লাইডের নিচে পাবে আলাদা একটি বাটন।


বন্ধুরা, নিজেদের দক্ষতা আরেকটু বাড়িয়ে নেবার জন্য দেখে নাও নিচের সমস্যা গুলোর সমাধান:


ড্রপ ডাউনগুলোতে ক্লিক করে জেনে নাও বিস্তারিত


চল বন্ধুরা আমরা নিজেদের একটু যাচাই করে নিই:


সঠিক উত্তরে ক্লিক করো


প্রশ্নটি পড়ে উত্তরটি অনুমান করো


আশা করি, উপরের আলোচনা থেকে তড়িৎ ক্ষেত্রের প্রাবল্য সম্পর্কিত বিষয়গুলো সহজেই বুঝতে পেরেছো। বন্ধুরা আজ এ পর্যন্তই। ভালো থেকো সবাই। 10 Minute School এর পক্ষ থেকে তোমাদের জন্য শুভকামনা রইলো।