শব্দগঠন

রাতুল তার বাংলা বইতে পড়লো, কুকুর ঘেউ ঘেউ করে শব্দ করে। সে বুঝে উঠতে পারলো না কেন শুধু কুকুর ঘেউ করে, এই কথাটি বলা হলো না। কেন এখানে ঘেউ ঘেউ বলা হলো। বন্ধুরা, বাংলা ভাষায় এরকম অনেক শব্দ আছে যা সাধারণত দুইবার ব্যবহৃত হয় আর এভাবে গঠিত হয় নানারকম শব্দ। চলো তাহলে এবার শব্দগঠন সম্পর্কে জেনে আসা যাক।

ধ্বন্যাত্মক শব্দ

কোনো কিছুর স্বাভাবিক বা কাল্পনিক অনুকৃতিবিশিষ্ট শব্দের রূপকে ধ্বন্যাত্মক শব্দ বলে। উদাহরণ: ঘেউ, ঘেউ (কুকুরের ডাক)


অনুকার শব্দ

শব্দের অনুকার বা বিকারে যেসব শব্দের সৃষ্টি হয় তাকে অনুকার শব্দ বলে।

খাবারদাবার: এইমাত্র খাবারদাবার শেষ হয়েছে।
জড়সড়: ভয়ে ছেলেটা জড়সড় হয়ে আছে।
রান্নাবান্না: রান্নাবান্না শেষ, এবার খাবার পালা।

দ্বিরুক্ত শব্দ

বাংলা ভাষায় কোনো শব্দ, পদ বা অনুকার শব্দ একবার ব্যবহার করলে যে অর্থ প্রকাশ করে দুইবার ব্যবহার করলে তার অর্থের সম্প্রসারণ ঘটে বা বিশেষভাবে জোরালো অভিব্যক্তি প্রকাশ পায়, এইসব শব্দকে দ্বিরুক্ত শব্দ বলে।

দ্বিরুক্ত শব্দকে তিনভাগে ভাগ করা যায় –

শব্দের দ্বিরুক্তি বা শব্দদ্বৈত
পদের দ্বিরুক্তি বা পদদ্বৈত
ধ্বন্যাত্মক দ্বিরুক্তি

নিচে দেখে নাও শব্দদ্বৈত বিভিন্নভাবে ব্যবহারের কৌশল –


এবার নিজেকে যাচাই করে নাও


রাতুলের মত তোমরাও শব্দগঠন বুঝে থাকলে তোমার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে নাও এই স্মার্টবুকটি।